বন্দরের উদ্ধারকৃত চাল চাঁদপুরের চুরি হওয়া চালান

195

নারায়ণগঞ্জের খবর: বন্দর মদনপুরের যুবলীগ নেতা জাবেদ ভুইয়ার কাছ থেকে জব্দ করা ১২০০ বস্তা চাল ছিল চাঁদপুরে চুরি হওয়া চালান। শুক্রবার বিকেলে চাঁদপুর থানা পুলিশ নারায়ণগঞ্জে এসে এ চালের চালান শনাক্ত করে। পুলিশ জানিয়েছে, যুবলীগ নেতা জাবেদ ভূইয়াকে গ্রেপ্তারে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে। জাবেদ ভূইয়া চোরাই চাল কিনে মজুদ করেছিল।

এ ব্যাপারে বন্দর ধামগর পুলিশ ফাঁড়ি ইন্চার্জ ইন্সপেক্টর ইশতিয়াক আশরাফ রাসেল জানিয়েছেন, এ ১২০০ বস্তা চাল চাঁদপুরে চুরি হওয়া চালের চালান। চাঁদপুর থানা পুলিশ এ চালের চালান চুরি হওয়া চাল বলে শনাক্ত করে নিশ্চিত করেছে। যেহেতু চাল চুরির ঘটনায় আগেই চাঁদপুর থানায় মামলা হয়েছে। এখন ওই মামলা অনুযায়ী পুলিশ আসামিদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যাবস্থা নিবে। পুলিশ এখনো যুবলীগ নেতা জাবেদ ভূইয়া গ্রেপ্তার করতে পারেনি।

হায়দার নিট কম্পোজিটের পরিচালক ইসমাইল হোসেন বলেন, ‘এ প্রতিষ্ঠানটির আগের মালিক ছিল জামায়াত নেতা সাদিক। তারা এটা ব্যাংকের কাছে দায়বদ্ধ রাখলে মালিকানা কয়েক হাত বদল হয়। বর্তমানে আমরা পাঁচ ভাই ব্যাংক থেকে হায়দার কম্পোজিট কিনে নিই। এখন ওই জামায়াত নেতা হায়দার টেক্সটাইলের মালিক। আর হায়দার কম্পোজিটের মালিক আমরা।’

তিনি আরও বলেন, ‘যুবলীগ নেতা জাবেদ এখানকার স্থানীয় ও প্রভাবশালী হওয়ায় আগের মালিক তাকে দশ হাজার টাকা বেতন দিয়ে প্রতিষ্ঠানে ভালো-মন্দ দেখার দায়িত্ব দেন। পরে কয়েক দফা মালিকানা বদল হলেও এই প্রতিষ্ঠানে জাবেদের চাকরি বহাল থাকে। সেই সম্পর্কের কারণে তিন দিন আগে যুবলীগ নেতা জাবেদ ভুইয়া আমার কাছে অনুরোধ করে দুই/তিন দিনের জন্য কয়েক বস্তা চাল রাখবে। তার অনুরোধে এ চাল রাখতে দেওয়া হয়।’

উল্লেখ, মদনপুরে হায়দরি কম্পোজিটের গোডাউনে স্থানীয় যুবলীগ নেতা জাবেদ ভূইয়া ১২০০ বস্তা চাল মজুদের গোপন খবর পায় পুলিশ। গত বুধবার রাতে গোডাউনে অভিযান চালিয়ে চালের বস্তাগুলি জব্দ করলে বৈধ কোন কাগজপত্র দেখাতে পারেননি ওই যুবলীগ নেতা।

নিউজটি শেয়ার করুন...