সাবেক সাংসদ কবরীর ক্যাডাররা এখনো ভোল পাল্টাচ্ছে

33

নিজস্ব প্রতিবেদক: নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাবেক সাংসদ কবরী অধ্যায়ের অবসান হলেও এখনো তার ক্যাডারদের দাপট কমেনি। ভোল পাল্টে নিজ নিজ এলাকায় অবস্থান করে নানা ধরনের অপরাধ কর্মকান্ড করে বেড়াচ্ছে এমন অভিযোগ ফতুল্লাবাসীর। তবে এদের মধ্যে কেউ প্রাণ ভয়ে দেশ ত্যাগ করেছে আবার কেউ কেউ অপরাধের ধরন পাল্টে ফেলেছে। নেশায় জড়িয়ে কিছু ক্যাডার পর্দার আড়ালে চলে গেছে। এলাকা ত্যাগ করে স্বেচ্ছায় আত্মগোপন করেছে কবরীর বেশ কিছু ক্যাডার।

সূত্র জানায়, চলচ্চিত্র অভিনেত্রী সারাহ বেগম কবরী নারায়ণগঞ্জ-৪(ফতুল্লা) আসনের সাংসদ নির্বাচিত হয়ে দলের ত্যাগী এবং পরীক্ষিত নেতাদেও পাশ কাটিয়ে বহিরাগত এবং দলের হাইব্রীড নেতা-ক্যাডারদের নিয়ে একটি নিজস্ব বলয় গড়ে তোলেন। এদের মধ্যে হারুণ অর রশিদ আরিফ ওরুফে বাঘা আরিফ, এনায়েত নগর ইউনিয়নের যুবলীগের সভাপতি স্বপন সরদার,ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতা ও ইউপি সদস্য আলাউদ্দিন হাওলাদার,লালপুরের কানা সুমন,বেয়াদব রনি,ফুয়াদ,বিসিকের ডাকাত আব্দুল্লা, মুসলিম নগরের নৌ ডাকাত ইউসুফ,ফতুল্লা ব্যাংক কলোনী এলাকার ডাকাত খেলাফত অন্যতম। আর এসব অপরাধীদের দিক নিদের্শনা দিতেন সাবেক এমপি কবরীর পিএস দৌড় সেন্টু।

অনুসন্ধানে জানাগেছে, এদের মধ্যে যুবলীগ নেতা হারুন অর রশিদ আরিফ অরুফে বাঘা আরিফ প্রাণ ভয়ে ত্যাগ করে প্রবাসে অবস্থান করছে। আরিফের বিরুদ্ধে ফতুল্লা থানায় ৫টি মামলা রয়েছে। স্বপন সরদার রাজনীতির আড়ালে প্রতারনার সাথে জড়িয়ে পরেছেন। চলতি মাসের ১৪ তারিখ ফতুল্লার দাপা এলাকায় সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে চাঁদাবাজী করতে গিয়ে জনতার ধাওয়া খেয়ে পালিয়েছে। কুতুবপুরের আওয়ামী লীগ নেতা আলঅউদ্দিন হাওলাদার বিভিন্ন সময়ে বিতর্কীত কর্মকান্ডের জন্ম দিচ্ছে। সন্ত্রাসী রনি ও কানা সুমন মাদক ব্যবসার সাথে জড়িয়ে পরেছে। এই দুই সন্ত্রাসী ইতোমধ্যে মাদকসহ একাধিকবার গ্রেফতার হয়ে হাজতবাস করেছে। কবরীর সংসদ সদস্য পদ চলে যাওয়ার পর পরই ফতুল্লা ত্যাগ করেছে তার ব্যাক্তিগত পিএস দৌড় সেন্টু। স্বেচ্ছায় আত্মগোপনে চলেগেছে ডাকাত খেলাফত,হিটলার। রাজনীতির মাঠ ত্যাগ করেছে বিসিকের ডাকাত আব্দুল্লাহ, নৌ ডাকাত ইউসুফ।

নিউজটি শেয়ার করুন...