আজ করোনা যুদ্ধে টিম খোরশেদের দুই মাস

267
নারায়ণগঞ্জের খবর: মরণঘাতী করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে নারায়নগঞ্জ সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলার মাকছুদুল আলম খন্দকার খোরশেদের নেতৃত্বাধীন “Team Khorshed 13 vs Covid 19” এর প্রত্যেক্ষ কার্যক্রমের দুই মাস ও করোনা সাসপেক্ট ও পজিটিভ মৃতদেহ দাফন ও সৎকার করার পূর্ণ হয়েছে আজ ০৮ ই এপ্রিল। টিম খোরশেদ ১৩ মধ্য জানুয়ারি থেকেই আমরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে করোনা ও ডেংগু সম্পর্কে জনগনকে সচেতন করতে প্রচারনা শুরু করে। বাংলাদেশে প্রথম বারের মত গত ০৮ই মার্চ নারায়নগঞ্জে দুইজন করোনা পজিটিভ সনাক্ত হওয়ার দিন থেকেই টিম খোরশেদ প্রত্যেক্ষ ভাবে করোনা প্রতিরোধে কাজ শুরু করে।
৯ ই মার্চ আমরা ২০ হাজার লিফলেট ছাপিয়ে মহানগরীতে বিতরণ শুরু করে ও স্থানীয় পত্রিকায় বিজ্ঞাপন প্রকাশ করে মানুষের দৃষ্টি আকর্ষণ করে।টিম লিডার খোরশেদ জুম্মার নামাজে সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য বক্তব্য রাখে এবং লিফলেট ও মাস্ক বিতরণ করতে থাকি। আমাদের সচেতনামূলক কার্যক্রম চলাকালীন সময়ে ১৮ মার্চ বাংলাদেশে প্রথম করোনায় একজনের মৃত্যু ঘটে।ফলে সারাদেশের মত নারায়নগঞ্জেও করোনা ভীতি ছড়িয়ে পরলে বাজারে স্যানিটাইজারের চাহিদা বাড়ায় একদিনেই সংকট সৃষ্টি হওয়ায় টিম খোরশেদ ১৯ মার্চ থেকে বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশন ও বিশ্ব সাস্থ্য সংস্থার ফর্মুলা অনুযায়ী স্যানিটাইজার বানানো শুরু করে।
২৮ শে মার্চ ৫০ এমএলের ৬০ হাজার বোতল স্যানিটাইজার ও ১০ হাজার বোতল ২৫০ এলএলের লিকুইড হ্যান্ড তৈরী ও বিতরণ করে। করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা বাড়তে শুরু করলে মৃতদেহের দাফন ও সৎকার নিয়ে অমানবিক অবস্থার সৃষ্টি হয়।আত্মীয় স্বজন,বন্দু,প্রতিবেশীরা, এমনকি পরিবারের লোকজনও যখন মৃতদেহ সৎকার ও দাফনে অনীহা জানাতে শুরু করে তখন ৩০ শে মার্চ team Khorshed 13 vs Covid নারায়নগঞ্জের জেলা প্রশাসক, নাসিক মেয়র ও সিভিল সার্জনের কাছে আবেদন করে তারা করোনা আক্রান্ত মৃতদেহ গোসল, জানাযা,দাফন ও সৎকার করতে আগ্রহী। ০৭ ই এপ্রিল টিম খোরশেদ নারায়নগঞ্জে করোনা পরীক্ষার জন্য ল্যাব স্থাপনের জন্য আবেদন জানান।
৮ ই এপ্রিল প্রথম করোনা সাসপেক্ট আফতাবউদ্দিনের দাফনের মাধ্যমে শুরু করে আজ ৮ মে পর্যন্ত ৪১ জনকে দাফন ও সৎকার করেন।এর মধ্যে ১২ জন কভিড ১৯ পজিটিভ, ২২ জন সাসপেক্ট ও ৭ জন ছিল স্বাভাবিক ভাবে মৃত্যুবরণকারী মৃতদেহ। করোনা মহামারী শুরু হওয়ার পরপরই ১৩ এপ্রিল থেকে টেলি মেডিক্যাল সেবা দেয়া শুরু করি।প্রথমে ৫ জন ও বর্তমানে ৮ জন চিকিৎসক হটলাইনের কল ট্রান্সফারের মাধ্যমে প্রতিদিন ১২ ঘন্টা ফ্রী সেবা দিয়ে যাচ্ছেন।প্রতিদিন ২১৫ থেকে ২৫০ জন আমাদের সেবা গ্রহন করে থাকে।৬ই মে পর্যন্ত ২৩ দিনে ৫২৮৩ জনকে আমরা সেবা দিয়েছি।নারায়ণগঞ্জ মহানগরী ও জেলার বাইরে থেকেও আমরা অনেক ফোন পেয়েছি ও সেবা দান করেছি।আমরা জুন মাসের শেষ পর্যন্ত এই সেবা অব্যাহত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।প্রয়োজন হলে সময় সীমা বৃদ্ধি করা হবে। টেলি মেডিক্যাল টিমের উদ্যেক্তা কাউন্সিলার মাকছুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ।
হটলাইন ম্যানেজমেন্ট ও সমন্বয়ের দায়িত্বে আশরাফুজ্জামান হিরা,ডক্টরস টিম লিডার ডা.ফরহাদ জেনিথ।আইডিয়া পার্টনার Time 2 Give আগামী সপ্তাহ থেকে বিভিন্ন জেলা থেকে কম মূল্যে সবজী কিনে এনে ওয়ার্ডবাসীর মধ্যে বিনামূল্যে বিতরণ ও ঈদের পূর্বে ভর্তূকী মূল্য খাদ্য সামগ্রী বিতরণের চেষ্টা করা হচ্ছে। এছাড়াও সরকারি ত্রাণ ও বিভিন্ন ব্যাক্তি এবং সংগঠনের সহায়তায় ওয়ার্ডবাসীকে দীর্ঘ মেয়াদি খাদ্য সহায়তা দেয়ার কাজ করে যাচ্ছে team Khorshed 13 vs Covid 19. এর ত্রাণ বিতরন টিম।সরকারী ত্রাণ বিতরণ ছাড়া বাকী সকল প্রকল্পে টিম খোরশেদ কে সহায়তা করছে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন Time 2 Give. Team Khorshed 13 vs Covid 19 এর টিম লিডার ও প্রধান সমন্বয়কারী ও time 2 give এডমিন প্যানেল মেম্বার মাকছুদুল আলম খন্দকার খোরশেদের নেতৃত্বে প্রায় ৫০ জনের একটি টিম গত দুই মাস যাবত করোনা মোকাবেলায় দিন রাত কাজ করে যাচ্ছে।
নিউজটি শেয়ার করুন...

Warning: A non-numeric value encountered in /home/narayang/public_html/wp-content/themes/Newspaper/includes/wp_booster/td_block.php on line 352