মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ০২:২০ পূর্বাহ্ন

নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগে বাকযুদ্ধে উত্তাপ-উত্তেজনা

আবদুর রহিম
নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে উত্তাপ বাড়ছে। জেলার রাজনীতি নিয়ন্ত্রণ নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ থাকলেও নতুন করে মাত্রা হিসেবে যোগ হয়েছে থানা কমিটি গঠন নিয়ে। তবে আওয়ামী লীগের দুই মেরুর প্রভাব এখন পুরো জেলার রাজনীতিতে ছড়িয়ে পরেছে। মূলত জেলা আওয়ামী লীগের উত্তর-দক্ষিণ মেরুর বিভাজনই জেলা রাজনীতিতে উত্তেজনা-উত্তাপ ছড়িয়ে দিচ্ছে। সম্প্রতি রূপগঞ্জ, আড়াইহাজারের থানা কমিটি গঠন ও সোনারঁগায়ের আহবায়ক কমিটি গঠনের পর থেকে জেলা আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে নানা নাটকীয়তা শুরু হয়েছে। আলোচনা চলছে ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের কমিটি গঠন নিয়েও। ৩ বছর মেয়াদী কমিটি দিয়ে ১৫ বছরের ধরে চলছে ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের কর্মকান্ড। এখানেও নতুন নেতৃত্ব নিয়ে আলোচনা-পর্যালোচনা শুরু হয়েছে। আওয়ামী লীগের মূল দলেই নয়, অঙ্গ সংগঠনগুলো নিয়েও নানা আলোচনা শুরু হয়েছে। জেলা যুবলীগের কর্মকান্ড স্থবির হয়ে পরেছে অনেক দিন ধরে। জেলা যুবলীগের কর্মীদের মতে, জেলা যুবলীগ গিলে খেয়েছে জেলা আওয়ামী লীগ। অপর দিকে শহর যুবলীগ থাকলেও শুধু মাত্র সভাপতি সাজনু ও সাধারন সম্পাদক উজ্জল ছাড়া কারো নাম শোনা যাচ্ছে না। তবে জেলা ও মহানগর যুবলীগের কমিটি গঠন প্রক্রিয়া শুরু হয়ে আওয়ামী লীগের রাজনীতির বিরোধ আরো এক ধাপ বৃদ্ধি পাবে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষক মহল।

সূত্রমতে, বলয় কেন্দ্রীক রাজনীতি দীর্ঘদিন ধরে চলে আসছে নারায়ণগঞ্জের রাজনীতিতে। স্বাধীনতার পরও নারায়ণগঞ্জে আওয়ামী লীগের রাজনীতি পরিচালিত হতো এক মঞ্চ থেকে। কিন্তু স্বাধীনতার কয়েক বছর পরই নারায়ণগঞ্জে উত্তর-দক্ষিণ মেরুর রাজনীতির সূচনা হয়। এরপর থেকে দুই মেরু আর এক মঞ্চে আসতে পারেনি। তবে জেলা আওয়ামী লেিগর রাজনীতিতে বিভক্তির পেছনে জেলা আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতাদের হাত রয়েছে। কিছু নেতা জেলা আওয়ামী লীগকে দ্বিখন্ডিত করে নিজেরা রাজনীতির মেকারম্যান সাজার চেষ্টা করে চলকে বিপদের দিকে ঢেলে দিচ্ছে। তবে বেশ কিছু দিন বলয়ের রাজনীতি বন্ধ থাকলেও সম্প্রতি সময়ে বলয়ের রাজনীতি আবারো চাঙ্গা হয়ে উঠেছে। উত্তর এবং দক্ষিন মেরুর নেতারা বাক যুদ্ধে লিপ্ত রয়েছে। বিভিন্ন সভা-সমাবেশে একে অপরের বিরুদ্ধে জ¦ালাময়ী বক্তব্য দিয়ে রাজনীতির মাঠ উত্তপ্ত করে তুলছে।

অন্যদিকে, জেলা আওয়ামী লীগের বিরোধে নতুন মাত্রা হিসেবে যোগ হয়েছে কমিটি গঠন প্রক্রিয়া নিয়ে। সম্প্রতি রূপগঞ্জ ও আড়াইহাজারের থানা কমিটি গঠন হয়। এর কয়েকদিন পর সোনারগাঁ থানা আওয়ামী লীগের আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছে। আর এই তিন কমটি নিয়ে নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগের নতুন করে উত্তেজনা বৃদ্ধি পেয়েছে। পাশাপাশি ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের কমিটিগঠন প্রক্রিয়াও শুরু হয়েছে। প্রায় ১১ বছর পর গত ক’দিন আগে ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ওই সভায় নতুন কমিটি গঠনের বিষয়টিকে গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। এছাড়া ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের দীর্ঘদিনের দাবি ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগ নতুন করে পূর্নগঠন হোক। ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগ নতুন করে গঠন প্রক্রিয়া শুরু হওয়ার খবরে কিমিটিতে স্থান পেতে বেশ কিছু নেতা নতুন করে তৎপর হয়ে উঠেছে। তবে ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগে প্রবীনদের পাশাপাশি নবীনরাও স্থান পাবেন বলেন বিশ^স্থ সূত্রে জানাগেছে।

অপরদিকে, জেলা আওয়ামী লীগের পাশাপাশি নতুন করে গঠনের দাবি উঠেছে জেলা ও মহানগর যুবলীগ নিয়ে। জেলা যুবলীগ এখন আর নারায়ণগঞ্জে নেই। জেলা যুবলীগের শীর্ষ নেতারা এখন মূল দলের শীর্ষ পদে থাকায় এখন আর জেলা যুবলীগের কোন কর্মকান্ড চোখে পরছে না। তবে নারায়ণগঞ্জ মহানগর যুবলীগের কর্মকান্ড থাকলেও তা দুই নেতার মধ্যেই সিমাবদ্ধ রয়েছে। তবে নারায়ণগঞ্জের আওয়ামী লীগ থেকে বিভাজন দূর করতে না পারলে আগামীতে আওয়ামী লীগের উত্তারপ আরো বৃদ্ধি পাবে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষক মহল।

নিউজটি শেয়ার করুন...

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Recent Comments

    © All rights reserved © 2023
    Design & Developed BY M Host BD