শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১১:২৭ অপরাহ্ন

পরিস্থিতি পর্যবেক্ষন করছে বিএনপির নেতাকর্মীরা

আবদুর রহিমঃ হামলা, মামলার শিকার নারায়ণগঞ্জ বিএনপি এখন পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে করছে। অনেক নেতার মধ্য থেকে এখনো গ্রেফতার আতঙ্ক কাটেনি। পুলিশ পেটানো মামলার পর থেকে বিএনপির অনেক নেতা এখন আর নিজ বাড়িতে থাকেন না। মামলার এহজার নামীয় আসামী নেতারা হাইকোর্ট থেকে আগাম জামিন নিয়েও তারা বাসায় থাকছে না বলে বিএনপির একাধিক সূত্রে জানাগেছে। এছাড়া অজ্ঞাত আসামীর হিসেবে গ্রেফতার হতে পারে এমন আশঙ্কায় অনেক নেতা এখন আর প্রকাশ্যে বেড় হচ্ছে না। কেউ কেউ বাড়ি ছেড়ে অন্যত্র রাত যাপন করছে।

অন্যদিকে ঘটনার সময় মিছিলের নেতৃত্বে থাকা প্রথম সাড়ির বেশ কিছু নেতাকে রহস্যজনক কারণে মামলায় আসামী না করায় বিএনপিতে নতুন করে আলোচনা-সমালোচনার মাত্রা যোগ হয়েছে। এ নিয়ে বিএনপি বেশ কিছু মধ্যম সাড়ির নেতা ক্ষোভ জানিয়েছে। জেলা বিএনপির তৃনমূলে চলছে নানা আলোচনা-সমালোচনা। তবে এক মালায় নারায়ণগঞ্জ বিএনপি অনেকটা কাবু হয়ে পরেছে তা এখন আর বলার অপেক্ষা রাখে না। রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, নারায়ণগঞ্জ বিএনপি হামলা,মামলায় কাবু হয়ে পরেছে। যে কারণে কেউ এখন ঝুঁকি নিতে চাচ্ছে না।

সূত্রমতে, নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতাকর্মী এখন আতঙ্কে দিন পার করছে। বিজয় দিবসের র‌্যালীতে পুলিশের উপর হামলার ঘটনার পর থেকে আত্মগোপনে চলে গেছে বিএনপি শীর্ষ নেতারা। বেশ কয়েকজন নেতা গ্রেফতারের পর তৃনমূলেও আতঙ্ক বিরাজ করছে। যে কোন সময় গ্রেফতার হতে পারে এমন আশঙ্কার কারণে রাত যাপন করছে অন্যত্র। দিনে এলাকায় আসলেও সাবধানতা অবলম্বন করছেন। পুলিশ পেটানোর মামলায় জেলা ও মহানগর বিএনপির সাধারন সম্পাদক বর্তমানে জেল হাজতে রয়েছে। এরপর আরো কয়েকজন নেতা বিভিন্ন স্থান থেকে গ্রেফতার হয়। আর এসব কারণেই মূলত বিএনপির মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পরেছে। এদিকে, বিজয় দিবসে পুলিশের উপর হামলায় অল্প সংখক নেতাকর্মী জড়িত থাকলেও মূলত এখন এর ভোগান্তি পোহাচ্ছে পুরো জেলা বিএনপি। ঐদিন পুলিশের উপর এভাবে হামলা চালানো ঠিক হয়নি বলেও বিএনপির মাঠ পর্যায়ের নেতাকর্মীরা মনে করছেন। এছাড়া যাদের কারণে পুরো দলকে ভোগান্তির শিকার হতে হয়েছে ওইসব নেতাদের এখনি সাবধান করা না হলে আগামী আরো বড় ধরনের ঝামেলা পোহাতে হবে জেলা বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনকে এমন দাবি বিএনপির তৃনমূলের। রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, বিএনপির নেতাকর্মীরা এতো হামলা, মামলা শিকার হয়েছেন যার কারণে তারা এখন তিক্ত-বিরক্ত। যে কারণে এখন এসব ঝামেলায় পরতে চায়। তবে এবসব ঠুনকো ঝামেলা এড়াতে বিএনপির শীর্ষ নেতাদের আরো সতর্ক হতে হবে বলেও মনে করছেন তারা।

নিউজটি শেয়ার করুন...

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Recent Comments

    © All rights reserved © 2023
    Design & Developed BY M Host BD