ফতুল্লা তক্কারমাঠে ছাত্রলীগ ক্যাডার শামীম বাহিনীর তান্ডব

880

নারায়ণগঞ্জের খবরঃ বেপরোয়া হয়ে উঠেছে ফতুল্লার তক্কারমাঠ এলাকার কথিত ছাত্রলীগ ক্যাডার শামীম। একের পর এক সন্ত্রাসী কর্ম কান্ডে জড়িয়ে পরেছে এই সন্ত্রাসী। সন্ত্রাসী শামিম বাহিনীর বিরুদ্ধে মাদক ব্যবসা, নারীদেহ ব্যবসা, লুট, ছিনতাই ও ইভটিজিংসহ বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডের অভিযোগ রয়েছে এমন দাবি স্থানীয়দের।

থেমে নেই ছাত্রলীগ ক্যাডার শামীমের সন্ত্রাসী কর্মকান্ড। চাঁদা ও হত্যা চেষ্টার অভিযোগে একই দিনে ফতুল্লা মডেল থানায় পৃথক ২টি অভিযোগ দায়ের হয়েছে। ছাত্রলীগের পরিচয় দিয়ে শামীম দীর্ঘদিন ধরে ফতুল্লার তক্কার মাঠ এলাকায় ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে। ভূক্তভোগীরা থানায় অভিযোগ করলেও থানা পুলিশ কোন ব্যবস্থা না নেয়ায় দিনে দিনে শামীম বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। প্রায় ৩০/৩৫ জনের একটি বাহিনী নিয়ে তক্কার মাঠ,সেহাচর,পিলকুনী,ব্যাংক কলোনীসহ আশপাশের এলাকায় সন্ত্রাসী কর্মকান্ড করে বেড়াচ্ছে এমন অভিযোগ স্থানীয়দের। সন্ত্রাসী শামীম তক্কার মাঠ এলাকার এমান মিয়ার পুত্র।

অভিযোগে জানাযায়, গত বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮টায় তক্কার মাঠ এলাকার এলাকার নাজমুল গামেন্টর্সেও সামনে চাঁদার দাবীতে শামীম বাহিনী এলাকার সোলায়মান মিয়ার পুত্র রাজুকে পিটিয়ে হত্যার হত্যার চেষ্টা চালায়। এ সময় এলাকাবাসী এগিয়ে এসে রাজুকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার কওে হাসপাতালে ভর্তি করে। এসময় শামীম বাহিনী রাজুর পকেটে থাকা নগদ টাকা ও একটি মোবাইল সেট নিয়ে যায়। অপরদিকে এ ঘঁনার এক ঘন্টা পর রাত সাড়ে ৯টায় ২ লাখ টাকা চাঁদার দাবীতে ব্যবসায়ী সোহেল গাজী গতিরোধ করে পিটিয়ে আহত কওে প্রায় অর্ধশাক্ষাধীক টাকা ও মোবাইল ছিনিয়ে নিয়ে যায়।

এ ঘটনায় শামীম সহ শান্ত, বিল্লাল,মামুন,মহসিন,সালঅম,বাবলুসহ প্রায় ১৫জনকে অভিযুক্ত করে ফতুল্লা মডেল থানায় পৃথক দু’টি অভিযোগ দায়ের হয়েছে। শামীম বাহিনীর সন্ত্রাসী কর্মকান্ডে ব্যবসায়ী মহলসহ স্থানীয়দের মধ্যে আতংক বিরাজ করছে। উল্লেখ্য সন্ত্রাসী শামীমের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসী,চাদাঁবাজীর অভিযোগে ফতুল্লা মডেল থানায় একাধিক মামলা ও অভিযোগ রয়েছে। সন্ত্রাসী শামীম তক্কার মাঠ এলাকার যুবলীগ নেতা সানোয়ার হোসেন জুয়েলের ভাতিজা।

নিউজটি শেয়ার করুন...