ভালো নেই ফতুল্লাবাসী

176

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ ভালো নেই শিল্পাঞ্চল খ্যাত ফতুল্লার মানুষ। নিয়মিত খুন,ছিনতাই আর কিশোর অপরাধীদের প্রকাশ্যে নারকীয় তাণ্ডবে অতিষ্ঠ ফতুল্লাবাসী। শঙ্কা আর আতঙ্কে দিন কাটছে স্থানীয় বাসিন্দাদের। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর দায়িত্বশীলদের আশ্বাসে এখন আর ভরসা রাখতে পারছে না থানা এলাকায় বসবাসকারী নিরিহ বাসিন্দারা।

সূত্রমতে, গত এক মাসে ফতুল্লার আইনশৃঙ্খলার পরিস্থিতির চরম অবনতি ঘটেছে। পর পর কয়েকটি হত্যাকান্ডের ঘটনায় সাধারণ মানুষ এখন শঙ্কিত,আতঙ্কিত। রাতে কিংবা দিনে প্রকশ্যে হত্যাকান্ডের ঘটনায় ফতুল্লার মানুষের মধ্যে নানা শঙ্কা দেখা দিয়েছে। নিজেকে এখন আর নিরাপদ ভাবছেন না। ইসদাইরে পর পর দুই হত্যাকান্ডের পর ওই এলাকার মানুষ আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছে।  কয়েকদিন পূর্বে ফতুল্লার তক্কারমাঠের হত্যাকান্ডের পর ঘর ফেরত মানুষের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে। ফতুল্লা স্টেশনে কিশোর অপরাধীদের নারকীয় তাণ্ডবে প্রাণ হারিয়েছে সাকিব নামের অপর এক কিশোর। এই হত্যাকান্ডের এক সপ্তাহ পূর্বে দুই গ্রুপ মাদক ব্যবসায়ীর মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। চাঁদার দাবিতে কুতুবপুরের শহীদ নগরে সংখ্যালঘু রিপন দাস দম্পতিকে পিটিয়ে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে একদল কিশোর অপরাধী। লালখাঁ এলাকায় এক যুবককে  রাস্তা থেকে ধরে নিয়ে হাত,পাঁ বেঁধে নির্মম নির্যাতন চালিয়েছে কথিত শিল্পপতি, বিএনপি নেতা তৈয়ব ম্যানেজার। এছাড়া বিভিন্ন সড়কে ছিনতাই এবং পাড়া মল্লায় চুরির ঘটনা নিত্যনৈমত্তিক বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।
থানা পুলিশ কিশোর অপরাধ দমনের উদ্যোগ নিলেও, তা শোডাউনেই সীমাবদ্ধ রয়েছে। শোডাউনের পর ফতুল্লার একাধিক স্থানে কিশোর অপরাধীরা তান্ডব চালিয়েছে। ইতোমধ্যে কিশোর অপরাধীের হামলায় দু’জন নিহত হয়েছে। সচেতন মহলের মতে, কিশোর অপরাধ দমনে অভিভাবকদের পাশাপাশি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের সাড়াশি অভিযান প্রয়োজন।
নিউজটি শেয়ার করুন...