যৌতুক মামলায় কাশিপুরের মেহেদী ঢাকায় গ্রেফতার

24

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ ফতুল্লার কাশিপুরের ইঞ্জিনিয়ার মেহেদী হাসান কে যৌতুক মামলায় গ্রেফতার করেছে উত্তরা থানা পুলিশ। বৃহস্পতিবার (৪ মার্চ) সন্ধ্যায় উত্তরার ৭ নং সেক্টরে অবস্থিত এটিএস গ্রুপে কর্মরত অবস্থায় তাকে আটক করে উত্তর পশ্চিম থানা পুলিশ। পরে শুক্রবার সকালে তাকে আদালতে পাঠানো হলে আদালত জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ প্রদান করে।

শুক্রবার (৫ মার্চ)সকালে ঢাকা চীফ মেট্টোপলিটন মেজিস্ট্রেট কোর্টের বিচারক মোহাম্মদ জসিম এই আদেশ দেন। নারায়নগঞ্জের ফতুল্লা থানার কাশিপুর বাংলা বাজারের মৃত মোঃ আলি মিয়ার পুত্র মেহেদী হাসান দীর্ঘদিন ধরে ঢাকার উত্তরায় বসবাস করে আসছে বলে জানা যায়।

জানা যায়,ঘরে স্ত্রী থাকার পরও খাদিজা নামের অপর এক নারীর সাথে অনৈতিক সম্পর্ককে কেন্দ্র করে প্রথম স্ত্রী নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার মেঘলা (ছদ্ম নাম) সাথে সম্পর্কের অবনতি হতে থাকে। ২০১৯ সালের ৫ জুলাই বিয়ে হলেও বিয়ের কয়েক মাস যেতে না যেতেই যৌতুকের জন্য চাপ প্রয়োগ করতে তাকে পরনারী যৌতুক লোভী স্বামী মেহেদী হাসান। বিভিন্ন সময় শ্বশুর বাড়ী থেকে উপঢৌকন পাঠালেও মন ভরেনি মেহেদি হাসানের। দাবীকৃত ১০ লাখ টাকা এনে দিতে না পারলে প্রথম স্ত্রীকে ডিভোর্স দেবারও হুমকী প্রদান করে।আর এজন্য দিনকে দিন বাড়তে থাকে নির্যাতনের মাত্রা। পেশায় ইঞ্জিনিয়ার হলেও নিজে ব্যবসা করার অযুহাত দেখিয়ে যৌতুকের জন্য চাপ সৃষ্টি করে মেহেদী হাসান। কথায় কথায় মারধর করতো বলেও জানান স্ত্রী মেঘলা। ১ সন্তানের জননী খাদিজা সাথে রয়েছে মেহেদী হাসানের পরকীয় প্রেম। মাঝে মাঝে সেখানেও রাত কাটান তিনি। এই নিয়ে সংসারে অশান্তি বলে জানান মেঘলা। নারী লোভি মেহেদী হাসানের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানিয়েছেন স্ত্রী মেঘলা।

নিউজটি শেয়ার করুন...