চেয়ারম্যান হিসেবে সায়েমকে চাচ্ছে আলীরটেকবাসী

60

নারায়ণগঞ্জের খবর: আসন্ন আলীরটেক ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে কারো চাপিয়ে দেয়া প্রার্থীকে মেনে নিবে না আলীরটেকবাসী। সক্রিয় এবং জনবান্ধন ব্যাক্তিকে চেয়ারম্যান হিসেবে চাচ্ছেন তাঁরা। সে হিসবে লোচনার প্রধান কেন্দবিন্দু তরুণ সমাজ সেবক সায়েম। যদিও সাংসদ সেলিম ওসমান মতিকে সমর্থন দিয়েছেন।  কিন্তু আলীরটেকবাসী দৃষ্টি সায়েমের দিকে।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, চেয়ারম্যান মতিকে সব সময় কাছে পাওয়া যায় না। তিনি ইউনিয়নের চেয়ে নিজের ব্যবসা নিয়েই বেশী ব্যস্ত সময় পার করেন।

অপরদিকে স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের দাবি, বর্তমান চেয়ারম্যান নিজেকে আওয়ামী লীগার দাবী করলেও তাকে আওয়ামী লীগের কোন কর্মসূচিতে পাওয়া যায় না। এমনকি সর্বশেষ জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মৃত্যু বার্ষিকীতে ইউনিয়ন পরিষদের একটি অনুষ্ঠানে ফটোসেশান ছাড়া অন্য কোন অনুষ্ঠানে তাঁকে দেখা যায়নি।

এদি দিয়ে সায়েম সম্পূর্ণ ভিন্ন।  তিনি এলাকায় বিভিন্ন সামাজিক কর্মকান্ড করে আলোচনার শীর্ষে অবস্থান করছেন। আর নানা কারনে বর্তমান চেয়ারম্যান মতিউর রহমান ও সাবেক চেয়ারম্যান জাকির হোসেনের স্থানীয় জনসাধারনের সাথে দূরত্ব সৃষ্টি হয়েছে।

জানাগেছে, আলীরটেক ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হওয়া সত্বেও মহামারি করোনাভাইরাস সহ কোন দূর্যোগেই মতিউর রহমানকে পাশে পাননা ইউনিয়নবাসী। শুধু তাই নয়, ঈদ উৎসবেও ইউনিয়নবাসীর খোঁজ নেন না তিনি। যার ফলে ইউনিয়নবাসীর মনে বিরাজ করছে চাপা ক্ষোভ। আর এসব কারণেই স্থানীয়রা বিকল্প প্রার্থী হিসেবে সায়েমকেই বেছে নিয়েছেন।

অপর প্রার্থী বিএনপি সমর্থিত সাবেক চেয়ারম্যান জাকির হোসেন আলীরটেক ইউনিয়নবাসীর কাছ থেকে সম্পূর্ণ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছেন তাঁকে সামাজিক কোন কর্মকান্ডে পাচ্ছে না এমন অভিযোগ এলাকাবাসীর।

স্থানীয়রা জানায়, তাঁর চেয়ারম্যান পদ চলে যাওয়ার পর থেকেই তিনি এলাকা থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পরেন। এই পর্যন্ত এলাকাবাসীর খোঁজ খবর নেয়া তো দূরের কথা, তাদের সাথে কোন প্রকার যোগাযোগই রাখেন নি তিনি।

এ বিষয়ে আলীরটেক ইউনিয়ন পরিষদবাসীর মতামত জানতে চাইলে তারা বলেন, কারো চাপিয়ে দেয়া প্রার্থীকে আমরা আর মেনে নিবো না। যারা করোনাকালীন সময়ে আলীরটেকাসীর পাশে থাকেনি, কোন খোঁজ খবর নেননি, তাদেরকে আর সুযোগই দেয়া হবেনা।

এলাকাবাসী জানায়, করোনাকালে আমাদের পাশে সায়েম ছাড়া কেউ দাঁড়ায়নি। আমরা তাকে পাশে পেয়েছি ছায়ার মত। তিনি সব সময় আমাদের খোঁজ খবর নিয়েছেন। সব ধরনের সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। তাই আসন্ন আলীরটেক ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান হিসেবে সায়েমের বিকল্প আমরা দেখছিনা।

স্থানীয় প্রবীন কয়েকজন আওয়ামী লীগ নেতা বলেন, বর্তমান চেয়ারম্যান মতিউর রহমান নিজেকে আওয়ামী লীগ সমর্থিত দাবি করলেও আওয়ামী লীগের কোন কর্মকান্ডে তার দেখা মিলেনা। ১৫ আগষ্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদাৎ বার্ষিকীতে তার কোন কর্মসূচি ছিলোনা। তার এমন কর্মকান্ডে  আমরা হতাশ।

অথচ আওয়ামী লীগের উপর ভর করে তিনি নির্বাচন করতে চাচ্ছেন এবং সেই নির্বাচনে আবারও বিজয়ী হওয়ার স্বপ্ন দেখেন। তাই আমাদের দাবি থাকবে, আর যাই তার হাতে যেন কোন অবস্থাতে নৌকা তুলে দেয়া না হয়। বোদ্ধা মহলের মতে, জনবান্ধন ব্যাক্তি হিসেবে সায়েমই যোগ্যতা অর্জন করেছে, জনগণের দাবি অনুযায়ী সায়েমকেই নৌকার মাঝি করা হোক।

নিউজটি শেয়ার করুন...