সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ০৬:৩২ অপরাহ্ন

দিনে মানুষকে ঘরে রাখার চেষ্টা,রাতে খাবার পৌছে দিচ্ছি র‌্যাব

নারায়ণগঞ্জের খবর: করোনার থাবায় ঢাকার পরেই বর্তমানে দেশের সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ন জেলা নারায়ণগঞ্জ। জেলায় ১৪ জন মৃত্যু বরণ করেছেন আর আক্রান্ত হয়েছে ১৬৯ জন। প্রতিদিন বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। এমন সংকটময় মুহুর্তে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে নিরন্তর কাজ করে যাচ্ছে র‌্যাব-১১। দিনের বেলায় লকডাউন মেনে সাধারণ মানুষকে ঘরে রাখতে সর্বোচ্চ চেষ্টা করে যাচ্ছে তারা। আর রাতে অসহায় গরীবদের বাড়ীতে পৌঁছে দিচ্ছে খাবার। এরই মধ্যে তালিকা করে নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন থানায় মানুষের বাড়ীতে খাবারের পাশাপাশি নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী দিচ্ছেন তারা। এছাড়া দরিদ্র পরিবারের শিশুদের জন্য নগদ অর্থ সহায়তাও দিচ্ছে র‌্যাব।

ঝুঁকির মধ্যেই পিপিই পড়ে অসহায় মানুষেদের পাশে দাঁড়াচ্ছেন র‌্যাব সদস্যরা। ত্রান সামগ্রী বিতরনে নেতৃত্ব দেয়া সিনিয়র সহকারী পরিচালক আলেপ উদ্দিন (পিপিএম) জানান, র‌্যাব সব সময় মানুষের কল্যানে কাজ করছে। এ দুর্যোগে অসহায় মানুষের পাশে থাকা আমাদের কর্তব্য। তাই ঝুঁিক যেনেও আমরা পিছপা হচ্ছি না। আমাদের প্রত্যেক সদস্য অসহায় মানুষদের কাছে খাবার পৌঁছে দিতে সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। রাতে ত্রান দেয়া প্রসঙ্গে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আলেপ উদ্দিন (পিপিএম) জানান, দিনে আইন শৃংখলা রক্ষা ও লকডাউন মানার জন্য ডিউটি করতে হয়। এছাড়া দিনে ত্রাণ দিলে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখাও সম্ভব হয় না। এজন্য আমরা রাতেই ত্রান দেয়ার সিদ্ধান্ত নেই।

সিদ্ধিরগঞ্জে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ত্রান পাওয়া এক ব্যাক্তি জানান, গভীর রাতে আমাদের বাসায় চাল-ডাল দিয়ে গেছেন র‌্যাবের লোকজন। গত কয়েক দিনের লক ডাউনে তাঁর বাসার খাবার ফুরিয়ে গিয়েছিলো। এ দু:সময়ে র‌্যাবের দেয়া খাবার তাঁর অনেক উপকার হবে বলে জানান তিনি।

র‌্যাবের ত্রান দেয়ার বিষয়টি নারায়ণগঞ্জে সাধারণ মানুষের মধ্যে ব্যাপক প্রশংসিত হয়েছে। বিভিন্ন মানুষ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাদের এমন কর্মকান্ডের ছবি দিয়ে উৎসাহ দিচ্ছেন। ভবিষ্যতে এ ধরনের কর্মকান্ড অব্যাহত রাখতে র‌্যাবের প্রতি আহবান জানান বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ। এ প্রসঙ্গে নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ থানা প্রেস ক্লাবের সভাপতি হোসেন চিশতী সিপলু জানান, রাতের আঁধারে কষ্ট করে র‌্যাব-১১ এর ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে। এতে উৎসাহীত হবে অন্যান্য সংস্থা ও সামাজিক সংগঠনগুলোও। ক্রমশঃ এভাবে মানবিকতা বাড়বে আমাদের দেশে, এগিয়ে যাবে।

নিউজটি শেয়ার করুন...

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Recent Comments

    © All rights reserved © 2023
    Design & Developed BY M Host BD