মেয়র আইভীর বিরুদ্ধে এক হলেন নারায়ণগঞ্জবাসী

1244

নারায়ণগঞ্জের খবরঃ জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি প্রদান শেষে জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এড. হাসান ফেরদৌস জুয়েল  বলেছেন, নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা: সেলিনা হায়াত আইভীর বিরুদ্ধে এই প্রথম নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ একত্রিত হয়েছে। ডা: আইভী বিভিন্ন সময় জামাত-বিএনপির লোকজনদের নারায়ণগঞ্জে এনে ওসমান পরিবারের বিরুদ্ধে কুরুচিপূর্ন বক্তব্য দেয়াচ্ছে। এর ফলে নারায়ণগঞ্জের মান ক্ষুন্ন হচ্ছে। তিনি এ অবস্থা চলতে দেয়া যায় না। আমরা এ জন্যই এত্রিত হয়েছি। আমরা এর প্রতিকার চাই।

স্মারকলিপির বরাত দিয়ে হাসান ফেরদৌস জুয়েল বলেন, প্রধানমন্ত্রীর জাতীয় সংসদে বক্তব্যে বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ সহচর ও স্বাধীনতা পদকে ভূষিত (মরণোত্তর) প্রয়াত একেএম সামসুজ্জোহা ও ঐতিহ্যবাহী ওসমান পরিবারের স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশ গ্রহন এবং ৭৫’র পরবর্তী সময়ের ভূমিকা নিয়ে যেভাবে বর্ণনা দিয়েছিলেন, তাতে নারায়ণগঞ্জবাসী গর্বিত ও সম্মানিত হয়েছে। কিন্তু আমরা অত্যন্ত উদ্বেগের সাথে লক্ষ্য করছি, নারায়ণগঞ্জে কোন অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটলেই একটি জনবিচ্ছিন্ন শ্রেনি এই পরিবারটিকে টার্গেট করে মাঠে নামে এবং বিভিন্ন আপত্তিকর বক্তব্য প্রদান করা শুরু করে। সংবিধানের বাহক সেজে যুদ্ধাপরাধী জামায়াত-শিবিরের সাথে আঁতাত করা ক্ষমতার জন্য লালায়িত কিছু বড় বড় ডক্টর সাহেবদের প্রেসক্রিপশনে ঘন ঘন রাজধানী থেকে তথাকিথত কিছু সুশীলরা নারায়ণগঞ্জে আসছেন। পরিতাপ হয়, ক্ষোভ হয় যখন দেখি যার আহবান ও সমর্থনে এসব সুশীলরা আসেন, তিনি হলেন নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ও জেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি সেলিনা হায়াত আইভী।

জুয়েল আরো বলেন, সরকারকে সরাসরি প্রশ্নবিদ্ধ করে সাগর-রুনী ও তনু হত্যাকান্ড নিয়ে মেয়র আইভীর বক্তব্যে আমাদেরও জিজ্ঞাসা, আসলে তিনি সাগর-রুনী ও তনু হত্যাকান্ড নিয়ে এমন কি জানেন? পাশাপাশি ওসমান পরিবারকে খুনী পরিবার আখ্যা দেয়ার নেপথ্যে যুদ্ধাপরাধীদের দল জামায়াত এবং সেই ক্ষমতার জন্য লালায়িত তথাকথিত ডক্টর সাহেবদের প্রেসকিপশন রয়েছে তা অনেকটাই স্পষ্ট। একই সাথে ঐতিহ্যবাহী এই পরিবারকে আঘাত করে স্বাধীনতার চেতনায় আঘাত করা হচ্ছে, আপনার দলের ক্ষতি সাধন করা হচ্ছে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক আবু হাসনাত শহীদ বাদল, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক খোকন সাহা, জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারন সম্পাদক এড. মহসিন মিয়া, মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক শাহ নিজাম, সাংগঠনিক সম্পাদক জাকিরুল আলম হেলাল, শহর যুবলীগের সভাপতি শাহাদা হোসেন সাজনু, নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কর্মাসের সভাপতি খালেদ হায়দান খান কাজল, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি প্রফেসর শিরিন আক্তার, ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক শওকত আলী, সোনারগাঁ থানা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এড. শাসুল ইসলাম ভূইঁয়া, জেলা ছাত্রলগের সাবেক সভাপতি সাফায়াত আলম সানি, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আজিজুর রহমান, মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি হাবিবুর রহমান রিয়াদ প্রমুখ।

নিউজটি শেয়ার করুন...