বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ০৯:৪৮ পূর্বাহ্ন

জেলাবাসীর দৃষ্টি রূপগঞ্জের দিকে

আবদুর রহিম
দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জের ৫’টি নির্বাচনী আসনের মধ্যে ৪টিতে আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থীর সঙ্গে শক্ত কোন প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকায় ভোটের মাঠে তেমন কোন উত্তাপ,উৎসব নেই। তবে ৫টি আসনের মধ্যে কেবলমাত্র  নারায়ণগঞ্জ-১(রূপগঞ্জ) আসনটি ব্যাতিক্রম। এ আসনে ভোটেরদের মধ্যে নির্বাচনী উত্তাপ, উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে। এ আসনে আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী এবং বস্ত্রমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজীর সঙ্গে ভোট যুদ্ধে অংশ নিয়েছেন তৃনমূল বিএনপির মহাসচিব এড.তৈমুর আলম খন্দকার, স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে রয়েছে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সদ্য পদত্যাগ করা উপজেলা চেয়ারম্যান শাহজাহান ভূঁইয়া, জাতীয় পার্টির সাইফুল ইসলাম। ফলে এ আসনে প্রতিদিনই সমর্থক,ভোটারদের মধ্যে নানা বিষয়ে উত্তাপ, উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। হামলা,পাল্টা হামলা এবং নির্বাচনী ক্যাম্পে আগুন দেয়াটা ঘটনায় থানায় পাল্টা পাল্টি মামলাও হয়েছে।  কিন্ত চার প্রার্থীর কেউ নির্বাচনী মাঠ ত্যাগ করেনি।
ফলে প্রায় প্রতিদিন এ আসনে নির্বাচন নিয়ে উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। এ আসনে একাধিক প্রার্থী থাকলেও মূলত প্রতিদ্বন্দ্বীতা হচ্ছে ত্রিমুখী। একদিন পরই ভোটারদের অপেক্ষার দিন শেষ হতে যাচ্ছে।  দেখার অপেক্ষায় রয়েছে কে হচ্ছেন রূপগঞ্জবাসীর অভিভাবক।
নির্বাচনের দিন নারায়ণগঞ্জ-১ (রূপগঞ্জ) আসনে সহিংসতার আশঙ্কা নেই জানিয়ে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী গোলাম দস্তগীর গাজী বলেন, ‘বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া এই অঞ্চলে বড় কিছু হয়নি। নির্বাচনের দিন পরিবেশ শান্ত থাকবে। সহিংসতা হবে বলে মনে করছি না।’
সম্প্রতি নৌকার ক্যাম্পে অগ্নিসংযোগ ও অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারের বিষয়ে গোলাম দস্তগীর গাজী বলেন, ‘এটা খুব বড় কিছু মনে করছি না। এর জন্য সরকারের উচ্চ পর্যায়ে অবগত করারও প্রয়োজন নেই আমার। স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনের প্রতি ভরসা আছে। তারা হয়তো আসামিদের খুঁজে পাচ্ছে না। দ্রুতই অভিযুক্তরা আইনের আওতায় আসবে বলে বিশ্বাস রাখি।’
মানুষ তাঁর উন্নয়ন দেখে ভোট দেবে উল্লেখ করে নৌকার প্রার্থী বলেন, ‘পুরো রূপগঞ্জে অনেক উন্নয়নকাজ হয়েছে। মানুষ সেই উন্নয়ন দেখে ভোট দেবে। আওয়ামী লীগের সকল পর্যায়ের নেতা-কর্মী আমাদের সঙ্গে রয়েছে। সাধারণ মানুষ আমাদের সঙ্গে রয়েছে।’
এরআগে নির্বাচনের পরিবেশ প্রসঙ্গে নারায়ণগঞ্জ-১ আসনে তৃণমূল বিএনপির প্রার্থী ও দলটির মহাসচিব তৈমুর আলম খন্দকার গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন  ‘নির্বাচন সুষ্ঠু হওয়ার কোনো সম্ভাবনা আমি দেখি না। পরিস্থিতি তো নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে গেছে’।  প্রধানমন্ত্রী যদি ব্যবস্থা না নেন তাহলে সুষ্ঠু নির্বাচনের প্রতিশ্রুতি প্রধানমন্ত্রী রক্ষা করতে পারবেন না। আমাদের নিরাপত্তা তিনি দিতে পারবেন না। তাহলে সুষ্ঠু নির্বাচন যে হবে না, বিরোধীদলের এই কথা প্রমাণিত হবে।
তিনি বলেন, প্রার্থীরা এমপি বাহিনীর দ্বারা বাধাগ্রস্ত হচ্ছেন, পোস্টার লাগাতে দিচ্ছে না, লাগানো পোস্টার খুলে ফেলেছে। চনপাড়াতে আমার পোস্টার লাগাতে দেয় নাই। ‘এমপির বাহিনী প্রতিটি ইউনিয়ন ও ওয়ার্ডে গোলযোগ সৃষ্টি করছে।
স্থানীয়রা বলছেন, নির্বাচন যতই এগিয়ে আসছে স্থানীয় সংসদ সদস্যের সন্ত্রাসীরা ততই আক্রমণাত্মক হয়ে উঠছে। স্থানীয় প্রশাসনের নিষ্ক্রিয়তার কারণে চার্জশীটভুক্ত ও চিহ্নিত সন্ত্রাসীরা বর্তমান সংসদ সদস্যের পক্ষে প্রচারণায় অংশগ্রহণ করছে। যার ছবি নিয়মিত বিভিন্ন সমাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশিত হচ্ছে। স্বতন্ত্র প্রার্থী ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহজাহান ভুঁইয়ার পক্ষে গণজোয়ার সৃষ্টি হওয়ায় তার কর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা ও হামলা করা হচ্ছে। জীবন বাঁচাতে অনেকে এখন এলাকা ছাড়া।
জানা যায়, স্বতন্ত্র প্রার্থী আলহাজ্ব শাহজাহান ভূঁইয়ার কেটলি মার্কার প্রচারণার সময় গত ২৫ ডিসেম্বর সাড়ে ১১টা চানপাড়া রাসেল নগর ইউনিয়নে যান ২৭ জন বীর মুক্তিযোদ্ধা। প্রচারণা চালানোর সময় চার দিকে থেকে ঘিরে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের উপর হামলা করে গোলাম দস্তগীর গাজীর পালিত সন্ত্রাস শমসের আলী ও তার বাহিনী।
এদিকে, গত ২৯ ডিসেম্বর রাত ২টায় উপজেলার দাউদপুর ইউনিয়নের কালনি বাজারে অবস্থিত কেটলি প্রতীকের নির্বাচনী ক্যাম্পে পেট্রল ঢেলে আগুন দেয় একদল দুর্বৃত্ত। আগুনে ক্যাম্পটির ভেতরের আসবাবপত্রসহ সব কিছু পুড়ে যায়।
কেটলি প্রতীকের নির্বাচনী ক্যাম্পে আগুন দিলেও ঘটনার পরের দিন অর্থাৎ ৩০ ডিসেম্বর দুপুর সাড়ে ৩টায় রূপগঞ্জ থানায় নৌকার সমর্থকরা শাহজাহান ভূঁইয়ার কর্মী ও নাওড়ার সাবেক মেম্বার মোশারফ হোসেন ও তার কর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা করে।
তথ্য সূত্র বলছে, ২৯ ডিসেম্বর সন্ধ্যা ৬ টায় নৌকা প্রতীকের নির্বাচনী ক্যাম্পে আগুন দেওয়ার অভিযোগ করা হয়। এদিকে, গত ৩০ডিসেম্বর স্বতন্ত্র প্রার্থী শাহজাহান ভূইয়ার নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ গ্রহণ করায় আয়েশা আক্তার নামে এক নারীর উপর হামলা ও মারধরের ঘটনা
এ প্রসঙ্গে নারায়ণগঞ্জ-১ (রূপগঞ্জ) আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহজাহান ভুঁইয়া বলেন, আমাদের ক্যাম্পে আগুন দিয়ে পরের দিন আমার কর্মীদের নামে মিথ্যা মামলা দিয়ে বাড়ি ছাড়া করছে।
এ প্রসঙ্গে নারায়ণগঞ্জ-১ (রূপগঞ্জ) আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহজাহান ভুঁইয়া বলেন, আমাদের ক্যাম্পে আগুন দিয়ে পরের দিন আমার কর্মীদের নামে মিথ্যা মামলা দিয়ে বাড়ি ছাড়া করছে। নির্বাচনের আগ মুহূর্তে প্রশাসনের নিষ্ক্রিয়তা সুষ্ঠ নির্বাচনের প্রতিবদ্ধকতা সৃষ্টি করবে।
নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবীর হোসেন বলেন, রূপগঞ্জের বিভিন্ন স্থানে সংঘর্ষের সঙ্গে সঙ্গে পুলিশ উপস্থিত হয়ে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নিচ্ছে। পুলিশের পক্ষ থেকে নির্বাচনী পরিবেশ শান্ত রাখতে অব্যাহতভাবে চেষ্টা চালানো হচ্ছে।
নিউজটি শেয়ার করুন...

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Recent Comments

    © All rights reserved © 2023
    Design & Developed BY M Host BD